একজন জান্নাতী মানুষের কাহিনী

0
16
জান্নাতী মানুষের কাহিনী

আদনান ফায়সাল:একদিন রাসূলুল্লাহ(সা) কিছু সাহাবার সাথে মসজিদে বসে ছিলেন। তখন তিনি বললেন, ‘এখন এমন একজন আসবে যে কিনা জান্নাতবাসীদের একজন’, এবং এরপর একজন অপরিচিত সাহাবা মসজিদে প্রবেশ করলেন। (এই সাহাবা তেমন বিখ্যাত কেউ একজন ছিলেন না, হাদিসে তার নামও উল্লেখ করা হয় নাই)। পরদিন রাসূলুল্লাহ(সা) একই কথা বললেন, তারপর একই সাহাবা মসজিদে প্রবেশ করলেন। তার পরের দিন রাসূলুল্লাহ(সা) আবার বললেন, ‘এমন একজন এখন আসবে যে কিনা জান্নাতবাসীদের একজন’, এবং সেই একই অপরিচিত সাহাবা এই দিনও আসলেন।

আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনে আস(রা) নামক সাহাবার মনে প্রশ্ন আসলো – কি এমন বিশেষত্ব ঐ সাহাবার যে পর পর তিনদিন তাকে বিশেষভাবে উল্লেখ করে জান্নাতী বলা হলো? তাই আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনে আস(রা) ঐ সাহাবাকে যেয়ে একটা অজুহাত দিয়ে অনুমতি চাইলেন যে তিনি ঐ সাহাবার বাসায় ৩ রাত থাকতে পারবেন কিনা। অপরিচিত সাহাবাটি তাকে থাকার অনুমতি দিলেন। আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনে আস(রা) তার বাসায় যেয়ে লক্ষ্য করলেন যে, এই সাহাবার জীবনযাত্রা খুবই সাধারণ – ইনি সব দিন (নফল) রোজা রাখেন না, রাতভর তাহাজ্জুদ নামাজ পড়েন না, ঘুমান। শুধু ফজর নামাজের কিছুক্ষণ আগে অল্প কয় রাক’আত নফল নামাজ পড়েন (যেটা আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনে আস(রা) এর মতো সাহাবাদের স্ট্যান্ডার্ডে কম নামাজ ছিল)।

তিনদিন পার হয়ে যাওয়ার পর আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনে আস (রা) অপরিচিত সাহাবাকে তার এই বাসায় থাকার আসল কারণ বললেন। তিনি জিজ্ঞেস করলেন, ‘ভাই, আপনি কোন্‌ কাজটা করেন যার কারণে রাসূলুল্লাহ(সা)আপনাকে জান্নাতীদের একজন বলেছেন? আমি আপনার কাছে সেই কাজটা জানতে চাই’। কিন্তু এই সাহাবা চিন্তা করে কিছু বের করতে পারলেন না, বিনয়ের সাথে বললেন, ‘সাধারণ কাজকর্মের বাইরে আমি কোনও কিছু করি বলে তো মনে করতে পারছি না!’

আরও পড়ুনঃ   আমরা কেন কৃতজ্ঞ হই না

যখন আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনে আস (রা) বাসা থেকে প্রায় বেরিয়ে আসতে নিয়েছেন তখন অপরিচিত সাহাবাটি বলে উঠলেন, ‘প্রত্যেক রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে যারা যারা আমার সাথে খারাপ আচরণ করেছে তাদের সবাইকে আমি ক্ষমা করে দেই। আমি আমার মন থেকে সমস্ত মানুষের ব্যাপারে সকল খারাপ অনুভূতিগুলি ঝেড়ে ফেলে দেই’।

সঙ্গে সঙ্গে আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনে আস(রা) বলে উঠলেন, ‘এটাই সেই কারণ!’

(মুসনাদ আহমদ) – ইমাম আন্‌ওয়ার আল আওলাকীর A man from Jannah হতে

Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

three − one =