গুরুত্বপূর্ণ কিছু হারাম কাজ যা আমরা নিজের অজান্তেই করে ফেলি

0
27
হারাম কাজ

কিছু নিষিদ্ধ কাজ,যা আমরা প্রায় সময় অবহেলার বসে করে থাকিঃ

✒গোসলখানায় প্রসাব করা যাবে না। যদি বাতরুম আলাদা থাকে (ইবনে মাজাহঃ ৩০৪)
✒কেবলামুখি বা তার উল্টো হয়ে প্রসাব, পায়খানা করা যাবে না। (সহিহ বুখারি ৩৯৫, নাসায়ীঃ ২১, আত তিরমিজিঃ ৮)
✒ গুলি বা তীরের নিশানা প্রশিহ্মণের জন্য প্রাণী ব্যবহার করা যাবে না। (মুসলিমঃ ৫১৬৭, সুনানে আবু দাউদঃ ২৮১৭, ইবনে মাজাহঃ ৩১৭০, আত তিরমিজিঃ ১৪০৯)
✒ইয়াহুদি, খ্রিষ্টান ও মুশরিক কাউকে বিয়ে করা যাবে না। আল কোরআন (সূরা আন নিসা/নুর)
✒ স্বামী ব্যতিত অন্য কারোর জন্য সাজা হারাম। আল কোরআন (আহজাবঃ ৩৩)
✒মুর্তি কেনা, বেঁচা, পাহারা দেওয়া হারাম। আল কোরআন (মাইদাহঃ ৯০, ইবরাহীমঃ ৩৫)
✒ কারো মুখমণ্ডলে আঘাত করা যাবে না। আল হাদিস (মুসলিমঃ ৬৮২১, আবু দাউদঃ ৪৪৯৬, আহমদঃ ৫৯৯১)
✒কাপড় পরিধাণ থাকা সত্তেও কারো গোপন অঙ্গের জায়গার দিকে দৃষ্টিপাত করা যাবে না। (মুসলিমঃ ৭৯৪, তিরমিজিঃ ২৭৯৩, ইবনে মাজাহঃ ৬৬১, আহমদঃ ১১৫০১)
✒ আল্লাহ ব্যতিত কারো নামে কসম করা যাবে না। বাপ দাদার নাম, কারো হায়াত, মসজিদ বা কোরআন এর নামে কসম করা, মাথায় নিয়ে সত্যতা প্রকাশ করা যাবে না। (আবু দাউদঃ ৩২৫০, নাসায়ীঃ ৩৭৭৮)

✒ উপুর হয়ে বুকের উপরে ভর দিয়ে শোয়া নিষিদ্ধ, কারণ এইভাবে শয়তান শোয়। –সহীহ বুখারী।

✒ বাম হাতে খাওয়া বা পান করা নিষিদ্ধ, কারণ বাঁ হাতে শয়তান খায়।– রিয়াদুস সালেহীন।
✒ পশুর হাড় দিয়ে ইস্তিঞ্জা করা নিষিদ্ধ, কারণ আল্লাহর নাম নিয়ে জবাই করা রাণীর হাড়গুলো যা মানুষেরা ফেলে দেয়, তা মুসলিম জিনদের খাবার। –সহীহ বুখারী।
✒ সন্ধ্যা সময় বাচ্চাদের বাইরে বের হতে দিতে রাসুল (সাঃ) নিষেধ করেছেন এবং ঘরের দরজা জানালা বন্ধ রাখতে বলেছেন, কারণ তখন জিনেরা বাইরে বের হয়।
✒ আযান দিলে শয়তান জিনেরা বায়ু ছাড়তে ছাড়তে লোকালয় থেকে পলায়ন করে। আর কুকুর ও গাধা শয়তান জিনদেরকে দেখতে পেলে চিৎকার করে। একারণে, অনেক সময় ইশা বা ফযরের আযান দিলে কুকুরেরা চিৎকার চেচামেচি শুরু করে। কারণ তখন কুকুরেরা আযান শুনে পলায়নরত
শয়তান জিনদের দেখতে পায়। উল্লেখ্য, রাতের বেলা কুকুর ও গাধার ডাক শুনলে “আউযুবিল্লাহি….রাজীম” এই দুয়া পড়ে শয়তান থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য আল্লাহ্র কাছে আশ্রয় চাইতে হয়। –সহীহ বুখারী, হিসনুল মুসলিম।
✒ মোরগ আল্লাহর রহমতের ফেরেশতাদেরকে দেখতে পায়, একারণে মোরগের ডাক শুনে “আল্লাহুম্মা ইন্নি আস- আসুকা মিং ফাযলিকা” এই দুয়া পড়ে আল্লাহর অনুগ্রহ চাইতে হয়।– হিসনুল মুসলিম।

আরও পড়ুনঃ   জান্নাতে যাওয়ার সহজ ১৩ টি আমল জেনে নিন

✒ দাঁড়িয়ে জুতা পরা যাবে না। আল হাদিস (সুনানে আবু দাউদঃ ৪১৩৭, আত তিরমিজিঃ ১৮৮৫, ইবনে মাজাহঃ ৩৬৮১)

✒কোন প্রাণীকে আগুনে পুড়িয়ে মারা যাবে না। আল হাদিস (আবু দাউদঃ ২৬৭৭, আহমদঃ ১৬০৩৪)
✒ যারা এগুলো করে তারা জান্নাতের গন্ধও পাবে না। (আবু দাউদঃ ৩৬৬৮, ইবনে মাজাহঃ ২৫২)
☛ ☛রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘আল্লাহ তাআলা ঐ ব্যক্তির চেহারা উজ্জ্বল করে দিন, যে আমার কোনো হাদীস শুনেছে। অতঃপর অন্যের কাছে পৌঁছে দিয়েছে।

আল্লাহ্ রাব্বুল আলামিনের কাছে প্রার্থনা করি—
“হে আমার প্রতিপালক! তুমি নিজ হতে আমাদেরকে অনুগ্রহ দান কর এবং আমাদের জন্য আমাদের কাজকর্ম সঠিকভাবে পরিচালনার ব্যবস্থা কর।

উৎসঃ অনলাইন

Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

twelve − five =