জান্নাতি নারীরা কেমন হবে?

0
20
জান্নাতি নারীরা কেমন হবে

আল্লাহপাক রব্বুল আলামিন নারী পুরুষ উভয়কেই সৃষ্টি করেছেন তার দাসত্ব করার জন্যে। যারা আল্লাহর দিক নির্দেশনা অনুযায়ি জীবন পরিচালিত করবেন তাদের জন্যে রয়েছে চির সুখের জান্নাত। আজ আমরা জানবো জান্নতি নারীদের বৈশিষ্ট্য ও করণীয়।

ধরুন আপনার আপনার নাম মুশফিকা নওরিন মিশু। আপনার জন্যে জান্নাত যাওয়া অত্যান্ত সহজ। যদি আপনি দুনিয়াতে মাত্র ৪টি কাজ করতে পারেন তবে আপনি জান্নাতের যে কোনো দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন। এসম্পর্কে মেশকাত শরীফের একটি হাদীসে বলা হয়েছে, হযরত আনাস (রাঃ) হতে বর্ণিত, নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন- যে মহিলা (১) পাচঁ ওয়াক্ত নামায (নিয়মমত) আদায় করবে, (২) রমযানের রোযা (ঠিকমত) রাখবে, (৩) লজ্জাস্থান হেফাযত করবে এবং (৪) স্বামীকে মান্য করবে, তাকে (কিয়ামতের দিন) বলা হবে, যে দরজা দিয়ে মন চায় সে দরজা দিয়ে তুমি বেহেশতে প্রবেশ করবে।

আল্লাহপাক নারীদের জন্যে জান্নাত যাওয়া অত্যান্ত সহজ করে দিয়েছেন। আরেক হাদীসে আছে, হযরত উম্মে সালমা (রাঃ) হতে বর্ণিত, তিনি বলেছেন, রাসূলুল্লাহ (সাঃ) ইরশাদ করেছেন, যে নারী তার স্বামীকে সন্তুষ্ট রেখে মৃত্যুবরণ করবে সে বেহেশতী হবে (অবশ্যেই স্বামীর শরীয়ত বিরোধী কাজে নয়)। [তিরমিযী]

জান্নাতে নারীরা কেমন হবে এই প্রশ্ন অনেকের। হাদীসেও এবিষয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে। যেমন: আবূ হুরায়রা রাদিআল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমরা বললাম, হে আল্লাহর রাসূল, জান্নাত সম্পর্কে আমাদের ধারণা দিন। কী দিয়ে জান্নাত নির্মিত হয়েছে? তিনি বললেন, ‘তার দেয়ালের একটি করে ইট সোনা দিয়ে এবং আরেকটি ইট রুপা দিয়ে নির্মিত। তার সিমেন্ট হলো উন্নত মৃগনাভী (হরিণের নাভী), তার প্লাস্টার ইয়াকূত ও মোতি এবং তার মাটি ওয়ারছ (নামের সুগন্ধি) ও জাফরান। যারা এতে প্রবেশ করবে তারা অমর হবে; কখনো মারা যাবে না। সুখী হবে; অসুখী হবে না। তাদের যৌবন শীর্ণ হবে না। আর তাদের কাপড় ছিন্নভিন্ন করা হবে না। (মুসনাদ আহমদ : ৯৭৪৪; মুসনাদ দারেমী : ২৮৬৩)

আরও পড়ুনঃ   রমাদান এবং এতে মুসলিম নারীদের করণীয়

নারীরা যখন জান্নাতে প্রবেশ করবেন, আল্লাহ তাঁদের যৌবন ফিরিয়ে দেবেন। আয়েশা রাদিআল্লাহু আনহা থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, একবার এক আনছারী বৃদ্ধা নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছে এলেন। তিনি বললেন, হে আল্লাহর রাসূল, আল্লাহর কাছে দু‘আ করেন তিনি যেন আমাকে জান্নাতে প্রবেশ করান। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, ‘জান্নাতে তো কোনো বৃদ্ধ মানুষ প্রবেশ করবে না।’ এ কথা শুনে বৃদ্ধা বড় কষ্ট পেলেন। তখন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, ‘আল্লাহ যখন তাদের (বৃদ্ধদের) জান্নাতে দাখিল করাবেন, তিনি তাদের কুমারীতে রূপান্তরিত করে দেবেন।’ (তাবরানী, আল-মু‘জামুল ওয়াছিত : ৫৫৪৫)

আল্লাহপাক নারীদের জন্যে জান্নাত যাওয়া অত্যান্ত সহজ করে দিয়েছেন। তারপরেও নরীরাই বেশি জাহান্নামে যাবে, একটি হাদীসে আছে, ইবনে আব্বাস (রাঃ) হতে বর্নিত নবী (সাঃ) বলেছেন,” আমি জান্নাতের প্রতি দৃষ্টিপাত করে দেখলাম তার অধিকাংশ অধিবাসী ফকীর আর জাহান্নামের প্রতি দৃষ্টি করে দেখলাম তার অধিকাংশ অধিবাসী মহিলা।(তিরমিযী)

আল্লাহপাক রব্বুল আলামিন আমাদেরকে তার দ্বীনের পথে পরিচালিত করে জান্নাত লাভের সৌভাগ্য দান করুন। আমিন।

Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

2 × 4 =